Sunday , 22 October 2017
Home / লাইফ স্টাইল / জীবনের কিছু সত্যি গল্প

জীবনের কিছু সত্যি গল্প





Bangladesh-Desi-College-Girl-nude-photosসালাম আশা করি ভাল আছেন । আমি আব্দুল্লাহ এখন বয়স ২০ । আজ আপনাদের কাছে আমার জীবনের ঘটে যাওয়া কিছু বাস্তব ঘটনা শেয়ার করব , যা আমার জীবনে প্রথম যৌন আক্রমন আমি পুরুষ হলেও আরেক পুরুষ দ্বারা যৌন কাজ হয়েছে ।অল্প বয়সে ই কয়েক জনের দ্বারা যৌন শিকার হয়েছি । আমার শরীরের গঠন একটু নাদুস নুদুস । সে হিসাবে যে কেহ দেখলেই কামভাবে চেয়ে থাকত। আমার বয়স যখন ৯/১০ তখন আমি একটি কওমী মাদরাসায় পড়তাম । সেখানে অনেকের মাঝে এক বড় ভাই নাম আনোয়ার সে আমাকে কাম ভাবে দেখত এবং মাঝে মাঝে জড়িয়ে ধরত । আমি কিছুটা বুঝতাম । তারপর কিছুদিন পর সে আস্তে আস্তে একটু বেশী বেশী শুরু করল । বিকাল বেলায় পুকুর পাড়ে সে আমাকে দিয়ে তার নুনু(আপনারা বাড়া লিঙ্গ সোনা পেনিস যাই বলেন) হাতাত । তার কিছুদিন পর সে আমার সাথে সেক্স করতে চাইল । ত সুযোগ বুঝে একদিন শুক্রবারে যখন সবাই জুমার নামাজ পড়তে গেল তখন সে আমাকে আটকে রাখল ।এখানে বলে রাখি মাদ্রাসা থেকে মসজিদ একটু দুরে তাই সবাই চলে গেল আমিও যাব কিন্তু সে দিলনা ।সে বলতে আনোয়ার বয়স ২৫/২৬।
সে এলাকার বলে তাকে ভয় পেতাম তাই তার সাথে একটি মক্তব ঘরে গেলাম সে দরজা লাগিয়ে আমাকে চাটাইয়ের উপড় শুয়ে দিয়ে সে আমার রানের ফাকে তার নুনু ঢুকিয়ে ঠেলতে লাগল ।তার পর সে আমাকে উপুড় করে আমার পিছনের রাস্তায় তার নুনু দিতে চেষ্টা করল কিন্তু ঢুকাতে পারল না ।আমি বেথায় চিত্‍কার দিয়ে উঠলাম ।তখন সে রানের চিপায় দিয়াই সন্তুষ্ট থাকতে হল । এবং তখন পর্যন্ত আমায় কেউ ঢুকাতে পারেনি ।যাই হোক সে প্রায়ই রাত্রে ঘুমিয়ে গেলে কখন যানি এসে আমার বিছানা ভিজিয়ে দিত আমি ভোরে উঠার সময় দেখতাম তে আমার বিছানা ভিজা ।বুঝতে অসুবিদা হতনা যে রাত্রে আনোয়ার এ কাজ করেছে । আবার মাঝে মাঝে রুমে হুযুর না থাকলে আমাকে জাগিয়ে হুযুরের রুমে নিয়ে এ কাজ করত ।তবে সে কখনো আমার পিছনে ঢুকাতে পারেনি ।তারপর সে আরেক মাদ্রাসায় চলে গেল ।কিন্তু আমার উপড় যৌন অত্নাচার বন্ধ হলনা । তার মতন আরো একজন নাম দানিস বয়স ২১ সেও সুযোগ বুঝে এ কাজ করত ।তার পর আমি একটু বড় হলাম মোটামোটি কিছুটা বুঝি ।বয়স তখন ১২/১৩ তখন শিকার হয়েছি আমার ক্লাসমেন্ট দ্বারা।
তবে তার কেউ ই উদের মত পুটকি মারতে আসত না ।খালি দুষ্টামি করত আমার বুকে একেক জন টিপ টাপ করত যখন যার ইচ্চা হত তখন ই আমার বুনি টিপত আমি লক্ষ করলাম আমার বুনি একটু ফুলে উঠতেসে সেই ফুলে উঠা বা তাদের টিপের ফসল আজো বয়ে বেরাচ্ছি ।আমি লজ্জায় হুযুরের কাছে বিচার দিতে পার তাম না ।এখন এটাকে ইভটিজিং বলে আর আমি ছেলে হয়ে ছেলেদের দ্বারা ইভটিজিংয়ের শিকার হয়েছি ,আমার কাছে এত খারাপ লাগত যে বলে বুঝানো যাবে না শুধু নিরবে সয়ে গেছি । ।তারপর যখন একটু বড় হয়েছি তখন ঠুটকাটা একটা ছেলে ভর্তি হয়েছে কিছু দিন পর তার নজরে পড়লাম সে আমাকে সেই আনোয়ারের মত কাম ভাব মিটাতে চাইত ।এখানে বলে রাথি আনোয়ারের সময় আমি কিছুই বুজতাম না এখন একটু বুঝি সে রাত্রে প্রথম যখন আমাকে ধরে তখন পিছন দিয়ে চেষ্টা করেও পারে নি তাই রানের চিপায় দিয়াই সে তার মাল আউট করত যখন সে আমাকে জরিয়ে ধরে ঠেলত তখন আমার একটু ভাল লাগত এবং আমার নুনু দিয়ে একটু একটু রস বাহির হতো । এটা কিন্তু বীর্য না বালেগ বা প্রাপ্ত বয়স্ক হবার আগে একটু আকটু বাহির হয় ।আর তার সাথে যা হতো তা গোপনে আমার ক্লাসমেন্ট রা কেও ই যানত না।

তারা দিনের বেলায় যার যার মত বুনি টিপক আর সে রাতের বেলা মাজে মাজে চিপা মারত । আর এখানে বলে রাখি এখানে মাদ্রাসার হুযুর রা কেউ আমাকে কিছুই করেনি ।যা করেছে সুধুই ছাত্ররা ।আর এদের কেউ ই আমাকে পিছনের রাস্তা দিয়া ঢুকাতে পারেনি ।এর মাঝে আরেক জন সে আমাকে দিয়ে তার নুনু টিপাত ।জয় বাংলা গাছের আড়ালে আমাকে নিয়ে বিকাল বেলা তার নুনু টিপাত । যাই হোক সময়ের পরিক্রমায় এই মাদরাসার লেখা পড়া শেষ করে চলে এলাম । তারপর থেকে বাড়ির পাশে এক প্রতিষ্টানে ভর্তি হলাম । এবং সেখান থেকে এবার ২০১১ এ ইন্টারমিডিয়েড পরীক্ষা দিলাম ।এর ভিতরে আরো অনেক ঘঠনা ঘটে গেছে যে গুলি পরবর্তী পার্টে বলা হবে । আমি ছোট বেলায় পুরুষের দ্বারা যৌন আক্রান্ত হয়ে এখন পুরুষের প্রতি আমার আকর্ষন হয়ে পরে । বলতে গেলে সমকামি বলা যায় ।কিন্তু আমার কি দোষ? সবাই কেন আমাকে দিয়ে এসব কাজ করাত?

HTML tutorial


Check Also

পাহাড় দাপিয়ে বেড়ান মৃদুলা

২২ হাজার ফুট উচ্চতায় দাঁড়িয়ে ২১ বছরের মেয়েটি। সিদ্ধান্তহীনতায় দু চোখে ঘুম নেই। একদিকে সর্বোচ্চ …